This Petition made change with 0 supporters!.

Related Petitions

Petitions Home » Browse Petitions » Eating fruit or formalin?

Eating fruit or formalin?

শিশুদের স্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে আমরা প্রতিদিন খাবারের তালিকায় ফল যুক্ত করি |  ফল  শিশুদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী | পুষ্টির যোগান এর পাশাপাশি শরীরের ক্যালোরি নিয়ন্ত্রণ করে এই ফল আর অনেক রোগের ঝুঁকি কমায় | আমরা যে ফলগুলো ক্রয় করি তার বেশিরভাগই বিদেশ থেকে আমদানি করা | আর এই ফলগুলো নিয়ে আমাদের কোনো চিন্তাই হয়না | কেন এই ফলগুলো অনেক দিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যায় ?  এটাতে কি ফরমালিন রয়েছে ?

      ফরমালিন কি এটা আমাদের শরীরে গেলে কি হয়?

ফর্মালিন (-CHO-)n হল ফর্মালডিহাইডের (CH2O) পলিমার। ফর্মালডিহাইড দেখতে সাদা পাউডারের মত। পানিতে সহজেই দ্রবনীয়। শতকরা ৩০-৪০ ভাগ ফর্মালিনের জলীয় দ্রবনকে ফর্মালিন হিসাবে ধরা হয়। ফর্মালিন সাধারনত টেক্সটাইল, প্লাষ্টিক, পেপার, রং, কনস্ট্রাকশন ও মৃতদেহ সংরক্ষণে ব্যবহৃত হয়। ফরমালিনে ফরমালডিহাইড ছাড়াও মিথানল থাকে, যা শরীরের জন্য ক্ষতিকর। লিভার বা যকৃতে মিথানল এনজাইমের উপস্থিতিতে প্রথমে ফরমালডিহাইড এবং পরে ফরমিক এসিডে রূপান্তরিত হয়। দুটোই শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।

উৎপাদন কম থাকার কারণে আমরা বিদেশ থেকে ফল আমদানি করি | ফলে দামটা একটু বেশি | এত বেশি দাম দিয়ে আমরা যে ফল ক্রয় করছি সেটা আমাদের জন্য কতটা স্বাস্থ্যকর | জনস্বাস্থ্যের কথা চিন্তা করে দেশের উচ্চ আদালত দেশের সীমান্ত গুলোতে ফল পরীক্ষা-নিরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছিলেন | সেই নির্দেশ কতটা মনে হচ্ছে?

বাংলাদেশ কৃষি সম্প্রসারণ এর একটি বিভাগে আছেন | যাদের দায়িত্ব হলো দেশের সীমান্ত গুলোতে ফলমূলের মধ্য দিয়ে কোন ভাইরাস বা ব্যাকটেরিয়া বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে দেখভাল করা | তারা সে বিষয়ে কতটা সতর্ক আছেন |

ফল বিষয়ে ক্রেতা এবং বিক্রেতার কে কতটা সতর্ক :

চাহিদা যেমন বেড়েছে তেমনি বেড়েছে ফলের দোকানের সংখ্যা | ফরমালিন আছে জেনেও  আমরা প্রতিনিয়ত সে সব দোকান থেকে ফল ক্রয় করি | ফল বিক্রেতাদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলে পরীক্ষা-নিরীক্ষার করার কোন সময় তারা পায় না | অথচ এই ফল পরীক্ষা করার কথা ছিল সীমান্তবর্তী এলাকায় | সে ক্ষেত্রে উচ্চ আদালতের নির্দেশনা কতটুকু মনে হচ্ছে |

ফলে ক্ষতিকারক পোকামাকড় কিংবা ব্যাকটেরিয়া দেখার দায়িত্ব কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের | কিন্তু তারা নাকি চোখে দেখে ছাড়পত্র দিয়ে দেন | তাদের কাছের ল্যাবের কথা জানতে চাইলে তারা বলেন ল্যাব আছে কিন্তু সেখানে কোন পরীক্ষা হয় না | সীমান্তে ফল পরীক্ষা-নিরীক্ষার মূল উদ্দেশ্য হলো বাইরে থেকে যেন কোন ব্যাকটেরিয়া বাংলাদেশের ঢুকে শস্যের কোন ক্ষতি না করতে পারে |

এই ফলগুলো যদি শুধুমাত্র চোখ দিয়ে পরীক্ষা করা হয় তাহলে আপনারা বুঝতে পারছেন এটি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য কতটা ক্ষতিকর  | ফরমালিনের কারণে বাংলাদেশে প্রতি বছর প্রায় 1 লক্ষ শিশুর রোগ আক্রান্ত হচ্ছে |

তাই বাংলাদেশ সরকারের কাছে আমাদের দাবি আগামী প্রজন্মের কথা চিন্তা করেই ফরমালিন ব্যবহারকারীদের যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয় |  এবং পুনরায় ফরমালিন ব্যবহার না হয় সে ক্ষেত্রে কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণ করা |

 

 

 

 

Hira Khatun

418 Views 2 Comments 4 Likes

Share This Petition

Letter

2 comments