This Petition made change with 0 supporters!.

Related Petitions

Petitions Home » Browse Petitions » কিডনি ব্যবসা | প্রতারণার ফাঁদ | মানুষের অঙ্গ বিক্রি |

কিডনি ব্যবসা | প্রতারণার ফাঁদ | মানুষের অঙ্গ বিক্রি |

        বিপুল জনসংখ্যার এই বাংলাদেশের হয়েছেন নানারকম ফাঁদ ফন্দি | কত যে ফন্দি রয়েছে এটা জানা অসম্ভব | আর এসব ফাঁদে পড়লেই বোঝা যায় একাজগুলো কত ভয়ংকর | সেটা যার জীবণে ঘটে শুধু সেই বুঝতে পারে। বলছি মানব দেহের অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ন অঙ্গ কিডনির কথা। এই দেশে সংঘবদ্ধ একটি চক্র আছে যারা মানুষের বিপদকে পুজি করে অথবা প্রলভনে ফেলে দীর্ঘদিন যাবত সাধারণ মানুষের শরীর থেকে সু-কৌশলে কিডনি নিয়ে যাচ্ছে।

        তেমনি ফাঁদে পড়েছিলেন জামালপুরের এরশাদ বাবুল (18) | ঘরের অভাব দূর করতে আয়ের একটা পথ খুঁজছে এরশাদ | কিন্তু ভারী কাজের কথা শুনলেই ভয়ে কেঁপে উঠে সে | এরশাদের এই ভয়ের পিছনে রয়েছে ভয়ঙ্কর একটা গল্প | যে গল্পের চরিত্রগুলো এরশাদকে একটা ফাঁদে ফেলে দেয় | আর সেই ফাঁদে পড়ে এরশাদ বিক্রি করে দেয় শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ | এরশাদকে সরকারি চাকরি, নগদ 10 লাখ টাকা ও সারা জীবনের ভার বহন করতে চাই | বিনিময় তার কাছে চাওয়া হয় তার শরীরের গুরুত্বপূর্ণ একটি অঙ্গ কিডনি | এই ফাঁদে পড়ে সে তার কিডনি দিতে বাধ্য হয় | অথচ ছেলের এই করুণ ঘটনা সম্পর্কে জানে না তার পরিবার | এক পর্যায়ে এরশাদ বাধ্য হয় তার পরিবারকে এসব ঘটনা জানাতে | সংসারের অভাবের কারণে এরশাদ জীবনের চেয়ে টাকাকে বড় করে দেখেছেন |

 

আর সগীর আহমেদ (এরশাদের কিডনি গ্রাহক)  টাকার চেয়ে তার ছেলের জীবনকে বড় করে দেখেছেন | অথচ এরশাদের দারিদ্রতার সুযোগ নিয়ে সগীর আহমেদ শুধু তাকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলেন নি বরং নিয়ে নিয়েছে তার শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ কিডনী | একই সাথে সে আইন লংঘন করেছেন | যার কারণে তার দন্ডিত হবার কথা | একই শাস্তির আওতায় আসার কথা সেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের, যেখানে কিনা এরশাদের কিডনি নেওয়া হয়েছে | কিন্তু অবাক হলেও সত্য এর কোন কিছুই হয়নি | কারণ আইনের দরজার কড়া নেড়ে কোন সাড়া পায়নি এরশাদের পরিবার |

 

       রাজধানীর ইউনাইটেড হসপিটাল (United Hospital) | 2009 সালের মার্চ মাসে এরশাদের শরীর থেকে কিডনি নিয়ে সগীর আহমেদ এর ছেলের দেহে প্রতিস্থাপন করা হয় | তারপরেই এরশাদের সাথে শুরু হয় সগীর আহমেদের প্রতারণা | এরশাদ সগীর আহমেদ এর কাছে তার চাকরি আর টাকা চাইলে, সগীর আহমেদ বলে তোমাকে আমি চিনি না | অনেক বড় একটা ধাক্কা খেলো এরশাদ | সগীর আহমেদ এর বিরুদ্ধে থানায় গিয়ে কোন সান্ত্বনা পেল না সে |  এভাবে আর কতদিন চলবে এই প্রতারণা | গরিব মানুষগুলো অভাবে পড়ে তাদের শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ বিক্রি করে দিচ্ছে | আর এই সুযোগ নিচ্ছে কিছু অসাধু কিডনি ব্যবসায়ী |  প্রতারণার ফাঁদে পড়ে আইনের কাছে গেলে কোন সাড়া পাচ্ছে না ভুক্তভোগীরা |  এই বিষয়গুলো নিয়ে আইনের কড়া নজর রাখা উচিত | যদি কেউ কোন ফাঁদে পড়ে তাহলে সে যেন তার সুষ্ঠু বিচার পাই |  

ধন্যবাদ সবাইকে

নাতাশা ইসলাম | 

Natasa Islam

841 Views 0 Comments 2 Likes

Share This Petition

Letter

0 comments